শনিবার, ১১ জুলাই ২০২০, ০২:১৮ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম:
করোনার ঝুঁকিতেই স্কুল খুলতে ট্রাম্পের নির্দেশ পেকুয়ায় প্রয়াত দুই নেতার স্মরণে খতমে কোরআন ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত গলাচিপায় বিলুপ্তর পথে বাবুই পাখির বাসা রংপুর মহানগর জাতীয় যুবসংহতির পুর্নাঙ্গ কমিটি ঘোষণা, মুল নেতৃত্বে জাকির-শান্তি-আনছার বাঘারপাড়ায় উৎসবমুখর পরিবেশে ছাত্রলীগের বৃক্ষরোপণ টেকনাফে ২০ হাজার ইয়াবাসহ রোহিঙ্গা আটক-১  টেকনাফ বাহারছড়ার ইউপি চেয়ারম্যান করোনা পজেটিভ। সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর মৃত্যুতে খাগড়াছড়ি পৌর মেয়র’র শোক কুষ্টয়িার দৌলতপুর সীমান্ত থেকে ৫ চোরাকারবারীকে আটক করেছে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বিএসএফ । যশোরে আইসোলেশন ওয়ার্ডে করোনা উপসর্গ নিয়ে একজনের মৃত্যু

বাংলাদেশ থেকে হজে যাওয়া হচ্ছে না এবার

করোনা ভাইরাস মহামারির মধ্যে এবার বাংলাদেশ থেকে হজে যাওয়া হচ্ছে না। এ বছর হজের বিষয়ে সৌদি সরকার এখনো কিছু জানায়নি। আজকের মধ্যে চূড়ান্তভাবে জানা যাবে বলে আশা করছেন আশকোনা হজ অফিসের পরিচালক মো. সাইফুল ইসলাম।

তবে হজের দায়িত্বে থাকা সরকারি কর্মকর্তারা আশ্বস্ত করেছেন, শেষ পর্যন্ত এবার বাংলাদেশ থেকে হজে যেতে না পারলেও কারও টাকা খোয়া যাবে না।
সৌদি আরবে গত তিন মাস ধরে চলমান লকডাউন কিছুটা শিথিল করে রবিবার থেকে ২৪ ঘণ্টার কারফিউ তুলে নেওয়া হলেও সে দেশে যাওয়া-আসার বিধি-নিষেধ অব্যাহত রয়েছে। মক্কা-মদিনার দেড় হাজার মসজিদ খুলে দেওয়া হলেও বন্ধ রয়েছে ওমরাহ। মসজিদগুলোতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে ইবাদত-বন্দেগি করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। আন্তর্জাতিক ফ্লাইট বন্ধ রয়েছে।
আশকোনা হজ অফিসের পরিচালক মো. সাইফুল ইসলাম বলেন, অবস্থাদৃষ্টে মনে হচ্ছে এবার আর হজে যাওয়া হবে না। ধারণা করছি, সৌদি সরকার আশপাশের দু-একটি দেশ থেকে অল্প কিছু সংখ্যক লোক নিয়ে হজের কাজ এ বছর চালিয়ে নেবে।
আশা করছি আজ-কালের মধ্যেই এ ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানা যাবে সৌদি সরকারের। ইতোপূর্বে সৌদি আরব সে দেশে ঘোষণা করেছিল, এবার শুধু মক্কা এবং মদিনায় বসবাসকারীরা হজ করতে পারবেন। তবে সেটি চূড়ান্ত রাজাদেশ হিসেবে জারি হয়নি।
হজ এজেন্সিজ অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (হাব) সভাপতি এম শাহাদাত হোসাইন তসলিম আজকালের খবরকে বলেন, মক্কা শহরের মসজিদ খুললেও হজের বিষয়ে সৌদি সরকারের পক্ষ থেকে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত আসেনি। সৌদি সরকারের সিদ্ধান্তহীনতার কারণে এবার হজযাত্রায় অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে। তিনি বলেন, পবিত্র হজের আর মাত্র ৩৮ দিন বাকি। চাঁদ দেখা সাপেক্ষে ৩০ জুলাই পবিত্র হজ হওয়ার কথা। এখন তারা সিদ্ধান্ত জানালেও আগে দেখতে হবে তারা কী কী শর্ত দেয়। সেই শর্তগুলো পর্যালোচনা করে হজের ব্যাপারে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। একইসঙ্গে আনুষ্ঠানিকভাবে মিডিয়াতে প্রকাশও করা হবে। তিনি বলেন, এখনই সিদ্ধান্ত না আসায় হজ এজেন্সিগুলো ও নিবন্ধিত হজযাত্রীরা চরম উৎকণ্ঠায় রয়েছেন।
এদিকে করোনা ভাইরাসের কারণে হজে যেতে না পারলেও নিবন্ধনকারী কারো জমা দেওয়া টাকা খোয়া যাবে না বলে আশ্বস্ত করেছেন ধর্ম মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা মোহাম্মদ আনোয়ার হোসাইন। তিনি বলেন, প্রাক নিবন্ধন ও নিবন্ধনের টাকা ব্যাংকের মাধ্যমে দিতে হয়। টাকা ব্যাংকে জমা দেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে মন্ত্রণালয় থেকে একটি চিঠি দেওয়া হয় যেন এ টাকা আর কেউ উঠাতে না পারে। পরে বিমানের টিকিট বা অন্যান্য বাবদ পে-অর্ডারের মাধ্যমে ওই টাকা উত্তোলন করা যাবে। সুতরাং যারা হজে যেতে পারবেন না তাদের টাকা খোয়া যাওয়ার কোনো সুযোগ নেই।
ধর্ম মন্ত্রণালয়ের এ কর্মকর্তা বলেন, এ বছর কেউ হজে যেতে না পারলে তারা তাদের টাকা ফেরত নিতে পারবেন। আবার আগামী বছর যেতে চাইলেও তারা অগ্রাধিকার ভিত্তিতে যেতে পারবেন। সেটি তার ওপর নির্ভর করবে।
সৌদি আরবের সঙ্গে চুক্তি অনুযায়ী, চলতি বছর বাংলাদেশ থেকে এক লাখ ৩৭ হাজার ১৯৮ জন হজে যাওয়ার কথা ছিল। এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় ১৭ হাজার ১৯৮ জন এবং বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় এক লাখ ২০ হাজার জনের হজে যাওয়ার সুযোগ ছিল। সে মোতাবেক ১ মার্চ থেকে হজে যেতে আগ্রহীদের নিবন্ধন শুরু হয়। তবে ৮ মার্চ দেশে প্রথম কোভিড-১৯ রোগী ধরা পড়লে নিবন্ধনে ভাটা পড়ে। এরপর প্রথম দফায় ২৫ মার্চ, দ্বিতীয় দফায় ৮ এপ্রিল এবং শেষ দফায় ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত নিবন্ধনের সময় বাড়ানো হয়। শেষ পর্যন্ত সরকারি ব্যবস্থাপনায় তিন হাজার ৪৫৭ জন এবং বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ৬১ হাজার ১৩৭ জনসহ মোট ৬৪ হাজার ৫৯৪ জন নিবন্ধন করেন। বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় নিবন্ধনের সময় প্রত্যেককে এক লাখ ৮২ হাজার ৯৫২ টাকা ব্যাংকে জমা দিতে হয়েছে। তাতে মোট এক হাজার ১১৮ কোটি ৫১ লাখ ৩৬ হাজার ৪২৪ টাকা। সৌদি আরবে বাড়ি ভাড়া ও মোয়ালেম ফি হিসেবে পরে তাদের আরও টাকা দেওয়ার কথা। আর সরকারি ব্যবস্থাপনায় হজের জন্য যারা নিবন্ধন করেছেন, তাদের প্যাকেজ অনুযায়ী পুরো টাকা ব্যাংকে জমা দিতে হয়। সরকারিভাবে এ বছর হজের যে তিনটি প্যাকেজ ঘোষণা করা হয়েছে, তাতে প্রথম প্যাকেজে চার লাখ ২৫ হাজার টাকা, দ্বিতীয় প্যাকেজে তিন লাখ ৬০ হাজার টাকা এবং তৃতীয় প্যাকেজে তিন লাখ ১৫ হাজার টাকা খরচ হওয়ার কথা।

স্যোশাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন....

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

নতুন ভিজিটর

বিশ্বে করোনা ভাইরাস

বাংলাদেশে

আক্রান্ত
১৭৮,৩৯০
সুস্থ
৮৬,৪০৬
মৃত্যু
২,২৭৫
সূত্র: আইইডিসিআর

বিশ্বে

আক্রান্ত
১২,২৬৭,৭৯৭
সুস্থ
৬,৭৩৯,৪৭৩
মৃত্যু
৫৫৪,৯০৮
©All rights reserved ©bdnewstoday
কারিগরী সহায়তা: মোস্তাফী পনি