শুক্রবার, ১০ জুলাই ২০২০, ০৫:০৮ পূর্বাহ্ন

লেডি ডন মিনি আটক

হারুনুর রশীদ,সাপাহার  প্রতিনিধি: সাপাহার থানাকে জ্বালিয়ে দেওয়ার হুমকিদাতা সন্ত্রাসের রাণী তৈবাতুন নেসা মিনিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার দিকে উপজেলার নিশ্চিন্তপুর গ্রাম হতে ভুমিদস্যুর দখলদার বাহিনীর সদস্য ওই সন্ত্রাসী রাণী মিনিকে তার বাসা হতে পুলিশ গ্রেফতার করে।
সূত্র জানায়, উপজেলার মিরাপাড়া দীঘির হাট এলাকার মৃত মহসিন আলীর ছেলে জনৈক মোকাদ্দেস আলী মিরা পাড়া মৌজায়  প্রায় ০৩ একর সম্পত্তি ক্রয় করে ৪৩বছর ধরে ভোগদখল করে আসছেন। সম্প্রতি পার্শ্ববর্তী আদলপুর গ্রামের মৃত আব্দুল খালেক এর ছেলে রিয়াজ আমম্মেদ উক্ত সম্পত্তির মধ্যে.৪১শতাংশ জমির জাল দলিল তৈরী করে জবর দখলের চেষ্টা করতে থাকে। দখল সম্পন্ন করতে না পেরে এক পর্যায়ে ওই ভুমিদস্যু মিরা পাড়া গ্রামের দস্যুরাণী হিসেবে খ্যাত আকলিমা খাতুন (৫২) (গলাকাটি) ও নিশ্চিন্তপুর গ্রামের আতংক সন্ত্রাসী তৈবাতুন নেসা (৫০) মিনিকে ভাড়া করে জমি জবর দখলের জোর চেষ্টা চালাতে থাকে।
এক পর্যায়ে বৃস্পতিবার ওই ভুমি দস্যু রিয়াজ তার সহযোগী ও সন্ত্রাসী রাণীদের লেলিয়ে দিয়ে তাদের সহযোগিতায় জমির উপর একটি অস্থায়ী ঘর তৈরী করে জবর দখলের চেষ্টা করে। এসময় জমির প্রকৃত মালিক মোকাদ্দেস আলী ও তার লোকজন সেখানে গিয়ে তাদের তৈরী ঘরটি উচ্ছেদ করতে গেলে উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের সৃষ্টি হয়।
এসময় সংবাদ পেয়ে পুলিশ ঘটনা স্থলে গিয়ে জমি দখলকারী রিয়াজ (৫৫)ও তার ছেলেকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।
এসময় এলাকায় লেডি ডন খ্যাত মিনি মোবাইলে সাপাহার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুল হাইকে ধৃত আসামীদের কোর্টে চালান না করার জন্য বিভিন্ন প্রকার হুমকি প্রদর্শন করতে থাকে। হুমকির এক পর্যায়ে তাদেরকে চালান করলে সে থানাকে জ্বালিয়ে পুড়িয়ে শেষ করে দিবে মর্মে ওসিকে হুমকি প্রদর্শন করে।
সৃষ্ট ঘটনাটি খতিয়ে দেখতে ও ভুমি দখলকারী সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যাবস্থা গ্রহণের জন্য সরকারের খাদ্য মন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুদার এমপি নির্দেশ দিলে নওগাঁ জেলা পুলিশ সুপার এর আদেশে সাপাহার সার্কেল বিনয় কুমার ও ওসি আব্দুল হাই ঘটনা স্থল পরিদর্শন করেন। এসময় হুমকি প্রদর্শনকারী ও জমি দখলদার বাহিনীর অন্যতম সদস্য সন্ত্রাসী তৈবাতুন নেসা মিনিকে পুলিশ গ্রেফতার করে জেল হাজতে পাঠায়।
বাহিনীর অন্যতম সদস্য দস্যুরাণী আকলিমা গলাকাটি পলাতক থাকায় তাকে আটক করতে না পারায় সৃষ্ট ঘটনায় ২১জনকে আসামী করে  থানায় একটি  মামলা দায়ের করা হয়। থানায় আটক থাকা ভুমি দস্যূ রিয়াজ আহম্মেদ ওই সম্পত্তির অনেক মূল্য ভেবে নাম মাত্র টাকা দিয়ে জাল দলিলটি তৈরী করেছে বলে স্বীকার করে।
উপজেলার নিশ্চিন্তপুরের তৈবাতুন নেসা মিনি ও মিরা পাড়া গ্রামের আকলিমা খাতুন গলাকাটি দীর্ঘ দিন ধরে এলাকায় বিভিন্ন অসামাজিক কার্যকলাপ ও দস্যুপনার কাজ করে আসছিল বলে পুলিশ ও এলাকাবাসী জানিয়েছেন।
এলাবাসীর পক্ষ থেকে তাদের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির জোর দাবি জানানো হয়।

স্যোশাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন....

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

নতুন ভিজিটর

বিশ্বে করোনা ভাইরাস

বাংলাদেশে

আক্রান্ত
১৭৫,৪৪১
সুস্থ
৮৪,৫৪৪
মৃত্যু
২,২৩৮
সূত্র: আইইডিসিআর

বিশ্বে

আক্রান্ত
১২,০৪০,৭৫৯
সুস্থ
৬,৪৪৩,৯৭৭
মৃত্যু
৫৪৪,১৪৭
©All rights reserved ©bdnewstoday
কারিগরী সহায়তা: মোস্তাফী পনি